চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ধর্মঘট চলছে

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও হাটহাজারী থানার ওসির প্রত্যাহারসহ চার দফা দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মতো চলছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ধর্মঘট। আজ সোমবার সকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনও বাস ছেড়ে যায়নি এবং শাটল ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন জানিয়েছে, শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে সমস্যার সমাধান করা হবে। কিন্তু আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন লিখিতভাবে দাবি আদায় না হওয়া পযর্ন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবেন তারা।

এর আগে প্রক্টর ও হাটহাজারী থানার ওসির প্রত্যাহারসহ চার দফা দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটকে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ শুরু করে ছাত্রলীগের একাংশ। দাবি আদায়ে রবিবার সকালে চট্টগ্রাম মহানগরীর বটতলী স্টেশনে বিশ্ববিদ্যালয়গামী শাটল ট্রেনের চালককে অপহরণ ও ট্রেনের হোজপাইপ কেটে দেয় বিক্ষুব্ধ ছাত্রলীগ কর্মীরা।

সংঘর্ষের কারণে বন্ধ হয়ে যায় ক্লাস-পরীক্ষা। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় পাঁচ পুলিশ সদস্যসহ আহত হয়েছেন ১২জন। সংঘর্ষের ঘটনায় ছাত্রলীগের দুই কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

প্রসঙ্গত, গত ৩১শে মার্চ ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর ওইদিন দিবাগত রাতেই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের পাঁচটি আবাসিক হলে তল্লাশি চালায় পুলিশ। এ সময় দুইটি আগ্নেয়াস্ত্র ও ১২৮ রাউন্ড গুলিসহ বিপুল পরিমাণ দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। পরদিন (১লা এপ্রিল) ফের উভয় গ্রুপ সংঘর্ষে জড়ালে ঘটনাস্থল থেকে ছয়জনকে আটক করে পুলিশ। পরে ৩রা এপ্রিল আটক ছাত্রলীগ কর্মীদের দেশীয় অস্ত্র মামলায় কোর্টে চালান দেয় হাটহাজারী থানা পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: