পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে টেলি সামাদকে

জনপ্রিয় অভিনেতা টেলি সামাদের মরদেহ আজ এফডিসিতে নেয়া হবে। সেখানে সকাল ১১টায় এবং বাদ জোহর মুন্সীগঞ্জে জানাজা শেষে তাকে দাফন করা হবে। শনিবার দুপুর ২টার দিকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে মারা যান তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলায় পড়লেও মন পড়ে থাকতো অভিনয়ে।  সেই টানেই ১৯৭৩ সালে প্রথম অভিনয় ‘কার বউ’ সিনেমায়।  

তারপর পায়ে চলার পথ, ভাত দে’সহ আরো শত-শত চলচ্চিত্রে মুখর উপস্থিতি। তাঁর নাম আবদুস সামাদ। সিনেমায় এসে হয়ে গেলেন টেলি সামাদ। কৌতুক অভিনয় দিয়ে জয় করেছেন কোটি ভক্তের হৃদয়। বাংলা চলচ্চিত্রেও এনেছিলেন সমৃদ্ধি। পাশাপাশি কাজ করেছেন সংগীত নিয়ে। ৪০টিরও বেশি চলচ্চিত্রে গান গেয়েছেন তিনি।

দীর্ঘদিন ধরে হৃদরোগ ও বার্ধক্যজনিত নানা সমস্যায় ভুগছিলেন বাংলা চলচ্চিত্রের শক্তিমান এই অভিনেতা।

টেলি সামাদের স্ত্রী বেবি সামাদ জানান, টেলি সামাদের ইচ্ছা অনুযায়ী গ্রামের বাড়ি মুন্সীগঞ্জের নয়াগাঁও গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে বাবা-মার কবরের পাশে দাফন করা হবে তাকে।  

ঢালিউডের অত্যন্ত শক্তিশালী ও জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতা টেলি সামাদের জন্ম ১৯৪৫ খ্রিষ্টাব্দের ৮ জানুয়ারি, মুন্সীগঞ্জের নয়াগাঁও এলাকায়। তার আসল নাম আবদুস সামাদ হলেও সিনেমায় এসে হয়ে যান টেলি সামাদ। দুই ছেলে ও দুই মেয়ের জনক তিনি। 

নজরুল ইসলামের পরিচালনায় ১৯৭৩ খ্রিষ্টাব্দের দিকে ‘কার বৌ’ চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়ে চলচ্চিত্র অঙ্গনে পা রাখেন তিনি। তবে দর্শকদের কাছে যে ছবিটির মাধ্যমে সর্বাধিক জনপ্রিয়তা অর্জন করেন সেটি হলো ‘পায়ে চলার পথ’। অভিনয়ের বাইরে ৫০টির বেশি চলচ্চিত্রে তিনি গানও গেয়েছেন।

তার অভিনীত সর্বশেষ ছবি অনিমেষ আইচের ‘জিরো ডিগ্রী’ মুক্তি পায় ২০১৫ খ্রিষ্টাব্দে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: