দ্বিতীয় টেস্টেও ইনিংস হারের লজ্জা বাংলাদেশের

হ্যামিলটনের পর বৃষ্টিবিঘ্নিত ওয়েলিংটনে টেস্টেও ইনিংস হারের লজ্জায় বাংলাদেশ। শেষ দিনে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ২০৯ রানে গুটিয়ে যায় টাইগারদের ইনিংস। এতে ১২ রানে হেরে যায় টাইগাররা।

এর আগে বাংলাদেশের করা প্রথম ইনিংসে ২১১ রানের জবাবে ৪৩২ করে ইনিংস ঘোষণা করে নিউলিল্যান্ড। আর এই জয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জিতলো কিউইরা।

অসম্ভব নয় তবে, ম্যাচ বাঁচানো খুবই কঠিন। দ্বিতীয় টেস্টের চতুর্থ দিন শেষে বলেছিলেন বাংলাদেশের ওপেনার তামিম ইকবাল। ড্র করাতো দূরে থাক ইনিংস হার ঠেকানোটাই অসম্ভব প্রমাণ করে দিলো টাইগার ব্যাটিং অর্ডার। বেসিন রিজার্ভের উইকেট এমন কি আহামরি। চাইলে ওয়ানডের মত টেস্টেও রান করা যায়। তার প্রমাণ পেলে কিউইদের প্রথম ইনিংস। স্বাগতিকদের কাছ থেকে নেয়া গেল কি কোন শিক্ষা?

সৌম্যকে দিয়ে মড়কের শুরু। তবে, এক প্রান্ত আগলে ছিলেন মোহাম্মদ মিঠুন। তব্‌ নিল ওয়েগনারের শর্ট বল থিওরিতে কাটা পড়েন। টেস্টে ক্যারিয়ারের প্রথম ফিফটি হতে তখনো তার তিন রান বাকি।

প্রথম ইনিংসের মত এবার ওয়েগনার। টাইগার উইকেট যেন মুড়ি মুড়কি। লিটনের ব্যাটের জং ছাড়লো না। তাইজুলে আর কতটা ভরসা? এই অবস্থায় একাই লড়াই করেছেন ক্যাপ্টেন মাহমুদউল্লাহ। মুস্তাফিজের সাথে ৩৩ রানের জোটে ইনিংস হার এড়ানোর চেষ্টা। কিন্তু ওয়েগনারে সেটুকুও হতে দিলেন না। ভেস্তে গেল ফিফটি করা রিয়াদের চেষ্টা। প্রায় দুই দিনেই ম্যাচ টাইগারদের হাত ছাড়া হয়ে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: