ত্রুটি জানিয়ে ফিরতে চেয়েছিলেন ইথিওপিয়ান বিমানটির পাইলট

ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সের বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার আগে কারিগরি ত্রুটির কথা জানিয়ে রাজধানী আদ্দিস আবাবাতে ফিরে আসার অনুমতি চেয়েছিলেন পাইলট। স্থানীয় সময় রবিবার রাতে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন, ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সের প্রধান নির্বাহী তৌলদে গেব্রেমারিয়াম।

তিনি জানান, পাইলটকে ফিরে আসার অনুমতির দেয়ার পরপরই কন্ট্রোলরুমের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় বিমানটির। যদিও দুর্ঘটনার কারণ এখনো জানা যায়নি বলে জানান তিনি।

এদিকে বিধ্বস্ত ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সের ‘বোয়িং- সেভেন থ্রি সেভেন- ম্যাক্স-এইট’ বিমানের ব্ল্যাক বক্সের খোঁজে তৎপরতা চালাচ্ছে উদ্ধারকারীরা। রবিবার ইথিওপিয়ার রাজধানী আদ্দিস আবাবা থেকে কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবি যাওয়ার পথে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়ে ১৫৭ জন আরোহীর সবাই মারা যান। আরোহীদের মধ্যে ১৪৯ জন যাত্রী এবং ৮ জন ক্রু ছিলো।

ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সের পক্ষ থেকে জানানো হয়, নিহতদের মধ্যে ৩২ জন কেনিয়ার, ১৮ জন কানাডার, ৮ জন আমেরিকার এবং ৭ জন ব্রিটেনের নাগরিক ছিলেন।

বিমান বিধ্বস্তে মৃত্যুর ঘটনায় শোক জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিবসহ বিশ্বনেতারা। এ ঘটনায় সোমবার রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করেছে ইথিওপিয়া।

এদিকে এ ঘটনার পর বোয়িং-সেভেন থ্রি সেভেন ম্যাক্স এইট মডেলের সব ফ্লাইটের উড্ডয়ন স্থগিত রাখার নির্দেশ দিয়েছে চীনের রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থা। সোমবার সকালে এক বিবৃতিতে কর্তৃপক্ষ জানায়, চীনের স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত বোয়িং- সেভেন থ্রি সেভেন ম্যাক্স এইট মডেলের সব বাণিজ্যিক ফ্লাইট স্থগিত করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, চীনে এ মডেলের ৯০টিরও বেশি বিমান রয়েছে। এর আগে, গত অক্টোবরে ইন্দোনেশিয়ায় বোয়িংয়ের একই মডেলের লায়ন এয়ারের একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়ে নিহত হয় ১৯০ জন। গত পাঁচ মাসে একই মডেলের দুটি বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার ঘটনায় চীনের বিমান সংস্থা নিরাপত্তাজনিত কারণে এ সিদ্ধান্ত নেয়। ২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান প্রস্তুতকারক কোম্পানি বোয়িং সেভেন থ্রি সেভেন ম্যাক্স এইট মডেলের উদ্বোধন করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: