পাক-ভারত উত্তেজনা: কাশ্মীর সীমান্তে পাল্টাপাল্টি আক্রমণ

কাশ্মীর সীমান্তে পাল্টাপাল্টি আক্রমণে পাকিস্তানের ৫ বেসামরিক নাগরিক নিহত এবং ৫ ভারতীয় সেনা আহত হয়েছেন। দুই দেশের যুদ্ধংদেহী আচরণে সীমান্তে বিরাজ করছে চরম উত্তেজনা। এসব ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে উত্তেজনা প্রশমনে দুই দেশকেই সংযত আচরণের আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়।

পাকিস্তানের মুজাফফারাবাদে ভারতীয় বিমান হামলার পর মঙ্গলবার দিনভর পাল্টাপাল্টি হামলা চালিয়েছে দুই দেশ। নিয়ন্ত্রণ রেখার কাছে জম্মু, রাজৌরি এবং পুঁছ জেলার ৫০টিরও বেশি বেসামরিক এলাকা লক্ষ্য করে হামলা চালায় পাকিস্তানি বাহিনী। এতে আখনুর প্রদেশে বেশ কয়েকজন ভারতীয় সেনা আহত হন বলে দাবি করেছে দেশটি।

আজাদ কাশ্মীরেও ভারতীয় বাহিনীর হামলায় বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে পাকিস্তান। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে ফোনালাপে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরাইশি অভিযোগ করেন, রাজনৈতিক লক্ষ্য পূরণে আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতা ঝুঁকিতে ফেলছে ভারত।

শাহ মেহমুদ কোরাইশি বলেন, ‘ভারত আন্তর্জাতিক নিয়ন্ত্রণরেখা লঙ্ঘন করেছে। আত্মরক্ষার্থে এ ঘটনার জবাব দেওয়ার অধিকার রয়েছে পাকিস্তানের।’

এর আগে সোমবার রাতে পাকিস্তানে মোজাফফরাবাদের বেশ কিছু জায়গায় সন্ত্রাসী ঘাঁটিতে ১২টি যুদ্ধবিমান থেকে বোমা হামলা চালানো হয় বলে দাবি করে ভারত। গভীর রাত থেকে সকাল পর্যন্ত বিমানের আওয়াজ শুনতে পেয়েছি। পরে টেলিভিশনে পাকিস্তানে ভারতের বিমান হামলার বিষয়টি আমরা জানতে পারি।’

বিমান হামলায় তিনশ’ জঙ্গি নিহত এবং বালাকোট, চাকোটি ও মুজাফফরাবাদে জয়েশ-ই-মোহাম্মদের তিনটি ঘাঁটি পুরোপুরি ধ্বংস হয়েছে বলে সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেন ভারতের পররাষ্ট্র সচিব। তবে পাকিস্তানের দাবি, পাল্টা প্রতিরোধের মুখে পালিয়ে গেছে ভারতীয় যুদ্ধবিমান।

এই ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়। উত্তেজনা প্রশমনে ইসলামাবাদ ও নয়াদিল্লিতে সংযত আচরণের আহ্বান জানিয়েছে চীন, ইইউ, ওআইসি এবং অস্ট্রেলিয়া।

%d bloggers like this: