ইভিএম নিয়ে আগ্রহের কমতি নেই

ধারণা বা অভিজ্ঞতা নেই তারপরও ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন বা ইভিএম নিয়ে আগ্রহের কমতি নেই ভোটারদের। প্রার্থীরাও মুখোমুখি হচ্ছেন নতুন অভিজ্ঞতার। তবে উৎকন্ঠা দূর করতেই, ১৭ই ডিসেম্বর থেকে ১০দিন প্রতিটি কেন্দ্রে মক ভোটিংয়ের আয়োজন করবে নির্বাচন কামিশন।

একাদশ সংসদ নির্বাচনে যে ৬টি আসনে এবার ইভিএম-এ ভোট হবে ঢাকা-৬ আসন তার একটি। পুরান ঢাকার এই এলাকার ভোটাররা এখন পর্যন্ত ইভিএম ব্যবহারের কৌশল জানেন না।

এলাকার ভোটাররা কেউ বলছেন, এখনো তাদের ইভিএম ব্যবহারের কৌশল জানা নেই; অনেকেই আবার বলছেন ভোটের দিন আগে অন্যের কাছে ইভিএম এর ব্যবহার জেনে নিয়ে তারপর ভোট কেন্দ্রে জাবেন তারা।

ওয়ারী,গেন্ডারিয়া,সূত্রাপুর,কোতয়ালী বংশালের একাংশ জুড়ে নির্বাচনী প্রচার করছেন জাতীয় পার্টি থেকে আসা মহাজোটির প্রাথী কাজী ফিরোজ রশিদ। ইভিএমের প্রস্তুতি নিয়ে তিনিও নিজেও পরিষ্কার ধারণা দিতে পারেননি। কাজী ফিরোজ রশিদ বলেন,‘প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সঙ্গে কথা হয়েছে; আমি বলেছি আমাদের সঙ্গে বৈষম্য করবেন না। আমার এলাকার লোকজন তো প্রশিক্ষিত না।‘

এসব সমস্যা দুর করতেই, ১৭ থেকে ২৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত সামরিক বাহিনীর সহায়তায় প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে ইভিএম প্রদর্শনী ও মক ভোটের আয়োজন করবে নির্বাচন কমিশন।

৩০শে ডিসেম্বরের নির্বাচনে সাতক্ষীরা, খুলনা, রংপুর, চট্রগ্রাম এবং ঢাকার ২টিসহ মোট ৬টি আসনে ৮০০ কেন্দ্রে ইভিএম-এ ভোট হবে। ভোট দেবেন, ২১ লাখ ২৪ হাজার ৪১১ জন ভোটার।

%d bloggers like this: